মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

শীতলক্ষ্যায় তৈরি হচ্ছে জাহাজ

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার কায়েতপাড়া এলাকায় তৈরি হচ্ছে আধুনিক জাহাজ ও বলগেট। জাহাজ তৈরিকে কেন্দ্র করে শীতলক্ষ্যা নদীর তীর ঘেঁষা কায়েতপাড়া গ্রাম এরই মধ্যে জাহাজের গ্রাম হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে। মাত্র কয়েক বছরের ব্যবধানে এখানে গড়ে উঠেছে ২৮ টি জাহাজ তৈরির কারখানা। হাজার মানুষের পদচারণে কায়েতপাড়া এখন কর্মমুখর জনপদে পরিণত হয়েছে। বর্তমানে কায়েতপাড়ায় শামস ডকইয়ার্ড, তালহা ডকইয়ার্ড, আমির ডকইয়ার্ড, মালেক ডকইয়ার্ড, মাসটাং ডকইয়ার্ড, খান ডকইয়ার্ড, ফাহিম ডকইয়ার্ড, ফটিক ডকইয়ার্ড, ভাই ভাই ডকইয়ার্ড, মনির ডকইয়ার্ড, মাসটাং ইঞ্জিনিয়ারিং প্রভৃতি নামে জাহাজ কারখানা রয়েছে। এখন কোস্টার বা মালবাহী জাহাজ, ফেরি, জেটি, পন্টুন, বালুবাহী ট্রলার, বলগেট ও ড্রেজার তৈরি হয় শীতলক্ষ্যার এ চরে। বিদেশি কাটা জাহাজের ৮ থেকে ১২ মিলিমিটার আকারের শিট ব্যবহার করা হয় জাহাজ তৈরিতে। ৮০ থেকে ৯০ টাকা কেজি দরে শিট কিনতে হয়। লোহার অ্যাঙ্গেল ৯৫ থেকে ১০৫ টাকা কেজিতে পাওয়া যায় স্থানীয় বাজারে। ১০ থেকে ১১ লাখ টাকায় জাহাজের মেশিন আমদানি করা হয় চীন থেকে। আর অন্যান্য মালামাল পাওয়া যায় ঢাকার বংশাল অথবা চট্টগ্রামের ভাটিয়ারিতে। একটি বড় জাহাজ তৈরিতে সব মিলে ১০ থেকে ১১ কোটি টাকা খরচ হয়। এরপর নির্মাতারা সুবিধামতো লাভে তা বিক্রি করেন। ২০ থেকে ২৫ জন কারিগরের একটি জাহাজ তৈরিতে সময় লাগে ১২ থেকে ১৫ মাস।