মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

মুড়াপাড়া জমিদার বাড়ী

নাটোর স্টেটের ট্রেজারার এবং মুড়াপাড়া রাজ পরিবারের প্রতিষ্ঠাতা রামরতন ব্যানার্জি ১৮৮৯ সালে ১৬.৫০ একর জায়গার উপর রাজ বাড়িটি নির্মাণ কাজ শুরম্ন করেন এবং তাঁর পুত্র বিজয় ব্যানার্জি ১৮৯৯ সালে নির্মাণ কাজ সমাপ্ত করেন। মুর্শিদাবাদের হাজার দুয়ারী প্রাসাদের অনুকরনে নির্মিত। ৯০ টির অধিক কক্ষ বিশিষ্ট দ্বিতল বিশাল এ প্রাসাদের সম্মুখে রয়েছে মাঠ, সান বাধানো ঘাটের পুকুর, আম বাগান, মন্দির, মঠ ও সারি সারি দীর্ঘ পাম গাছ। প্রাসাদে রয়েছে অতিথিশালা কাচারি ঘর, নাচ ঘর, পূজা ঘর, আসত্মাবলসহ অনেক কক্ষ। পিছনদিকে উঠান, বাগান ও পুকুর রয়েছে। পরবর্তী কালে বিজয় ব্যানার্জির পুত্র জগদীশ ব্যানার্জি ও আশুতোষ ব্যানার্জি এতে বসবাস করেন। জগদীশ চন্দ্র ব্যানার্জি দুই বার দিলস্নী কাউন্সিল অব স্টেট নির্বাচিত হন। ১৯৪৭ এ দেশ বিভাগের পর জমিদারগণ এই বাড়ি ছেড়ে কলকাতায় চলে যান। পরিত্যাক্ত ভবনে তৎকালনী সরকার শিশু অপরাধী সংশোধন কেন্দ্র স্থাপন করেন, পরবর্তীতে এটি অন্যত্র স্থানান্তরিত হয়। ১৯৬৬ সালে মুড়াপাড়ার বিশিষ্ট শিল্পপতি ও ব্যবসায়ি হাজী গোলবক্স ভূইয়া ‘‘হাজী গোলবক্স ভূইয়া কলেজ’’ নামে এটি প্রতিষ্ঠা করেন। প্রথমে কলেজটি মুড়াপাড়া হাই স্কুল ক্যাম্পাসে চলু করা হয়। ১৯৭১ এ দেশ স্বাধীন হওয়ার পর কলেজটি বর্তমান ক্যাম্পসে মুড়াপাড়া ডিগ্রি কলেজ নামে স্থানান্তর করা হয়। বর্তমানে  এটি মুড়াপাড়া বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ নামে পরিচিত।